1. admin@nplustv.com : admin : Shadat Hossain Raju
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৫:৫৭ পূর্বাহ্ন

হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা বাড়িয়ে দেয় যে অভ্যাসগুলো।

Nplustv reporter
  • আপডেট সময়ঃ বুধবার, ১৫ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৭৩ বার পড়া হয়েছে

আমাদের শরীরের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ হলো হৃৎপিণ্ড। এর পেছনে অবশ্যই কারণ আছে। কম কোলেস্টেরলযুক্ত খাবার, কার্ডিও ভাস্কুলার ব্যায়াম ও স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপনের মাধ্যমে  হার্টকে সুস্থ রাখা সম্ভব। যদিও বেশির ভাগ মানুষ এই নিয়ম অনুসরণ করতে পারে না আর পরিণতিতে হার্টে দেখা দেয় সমস্যা। অনেক সময় আমরা এ-ও বুঝতে পারি না যে কী কী কারণে আমাদের হার্টের ক্ষতি হচ্ছে।  এ রকম কিছু অভ্যাস নিয়ে আজ আলোচনা হবে।

দৈনন্দিন কাজের মধ্যে না থাকা

অনেক কারণেই একজন মানুষ দৈনন্দিন কোনো কাজে ব্যস্ত না থাকতে পারে। আবার আপনি এমন কোনো ব্যবস্থা খুঁজে না-ও পেতে পারেন, যা আপনাকে ফিট রাখে। কিন্তু হার্ট ভালো রাখতে হলে আপনাকে কাজে ব্যস্ত থাকতে হবে। এমন না যে জিম করতেই হবে। ধীরে ধীরে শুরু করুন। দিনের মধ্যে ২০ মিনিট সময় বের করে হাঁটতে পারেন, যা হার্ট ভালো রাখে। হাঁটলে, দৌড়ালে বা খেলাধুলা করলে তা কোলেস্টেরল কমিয়ে রাখে, সেই সঙ্গে ওজনও রাখে নিয়ন্ত্রণে।

ধূমপান

ধূমপান শরীরের জন্য কতটা ক্ষতিকর তা নতুন করে বলার কিছু নেই। এটি হার্টের অনেক ক্ষতি করে এবং দুর্বল হার্টের কারণে যে মৃত্যু হয়, তার এক-তৃতীয়াংশের জন্য দায়ী ধূমপান।

কার্বন মনোক্সাইড হলো সিগারেটের একটি প্রধান উপাদান এবং যা রক্তের গণনা কম করে এবং উচ্চ কোলেস্টেরল হ্রাস করে। ধূমপান কমালে সমস্যা সমাধান হয়ে যায়, তবে ভালো হয় যদি সম্পূর্ণ বাদ দেওয়া যায়।

অতিরিক্ত মানসিক চাপ

কাজ, পরিবার বা অন্য কোনো কারণে হার্টের ওপর অতিরিক্ত চাপ সৃষ্টি হতে পারে আর এতে করে কোলেস্টেরল বেড়ে যায়। এ থেকে ধমনির ক্ষতি হতে পারে, যা হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কয়েক গুণ বাড়িয়ে দেয়।

মানসিক চাপ মোকাবেলা করার জন্য অনেকে মদ্যপান করে, ধূমপান করে এবং অতিরিক্ত খাওয়াদাওয়া করে, যা সবই হার্টের আরো ক্ষতি করে। মানসিক চাপ কমার জন্য আপনার ব্যায়াম করা উচিত, যার ফলে হরমোন নিয়ন্ত্রিত থাকে। এ ছাড়া মেডিটেশন, লেখালেখি, গান শোনা, পরিবার বা পোষা প্রাণীর সঙ্গে সময় কাটালে মানসিক অবসাদ থেকে অনেকটা মুক্তি পাওয়া যায়।

 

অ্যালকোহল

হার্ট অ্যাটাকের অন্যতম একটি কারণ হলো অ্যালকোহল গ্রহণ করা। এটি শরীরে ট্রাইগ্লিসারাইডের মাত্রাকে ট্রিগার করে, যা থেকে অস্বাস্থ্যকর চর্বি এবং এ থেকে  কোলেস্টেরল বৃদ্ধি পায়। অতিরিক্ত মদ্যপানের কারণে ধমনিতে ব্লক ও ওজন বৃদ্ধি পাওয়ার মতো সমস্যা দেখা দেয়। এ জন্য অ্যালকোহল পান করলেও তা যেন পরিমিত পরিমাণে হয়।

 

জাঙ্ক ফুড

আপনি যদি সারা সপ্তাহ কাজ করেন, তাহলে আপনার অস্বাস্থ্যকর, প্রক্রিয়াজাত খাবার খাওয়া এবং ঘনঘন বাইরে খাবার খাওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে। এটি আরেকটি ক্ষতিকারক অভ্যাস, যা রক্তচাপ এবং কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। এ জন্য খাবার খাওয়ার আগে মেন্যুতে খাবারের উপাদানগুলো দেখে নিন আর যতটা সম্ভব বাইরের খাবার এড়িয়ে চলুন।

পোষ্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর পড়ুন
© কপিরাইটঃ- এন প্লাস টিভি (২০২০-২০২২)
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD