1. admin@nplustv.com : admin : Shadat Hossain Raju
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৫:৪৪ পূর্বাহ্ন

কক্সবাজারে কটেজের আড়ালে অবৈধ কারবার,গড়ে উঠেছে টর্চার সেল । আটক ১১ জন,উদ্ধার ৪ জন কিশোর

ferdous alom apu
  • আপডেট সময়ঃ মঙ্গলবার, ৯ আগস্ট, ২০২২
  • ৩৫ বার পড়া হয়েছে

পর্যটন নগরী কক্সবাজারের কটেজ জোন সৈকত ও স্বরন এলাকায় বেশকিছু কটেজে পর্যটক হয়রানি, প্রলোভন ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে প্রতারণা, জোরপূর্বক আটকে রেখে টাকা আদায়, ব্ল্যাকমেইল করাসহ বিভিন্ন অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছিল। সেইসূত্র ধরেই গতকাল রাতে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রেজাউল করিমের নেতৃত্বে ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের একটি টিম পর্যটক সেজে ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে মোট ১১ জন দালালকে আটক করা হয়। আটককৃত আসামীরা হল মোঃ আলমগীর ৪৫, মোঃ সেলিম ২০, আকাশ দাস ২৩, মোঃ জোবায়ের ১৮, মোঃ মামুন ২২, নাজির হোসেন ২৮, সেকেন্দার আলী ২৮, মোঃ সোহেল ৩০, মোঃ জাহাঙ্গীর আলম ৩৩, মোঃ জসিম ২৭, ও পারভেজ ২৫। এরা সবাই কটেজ জোনের চিহ্নিত দালাল চক্রের সদস্য। এরা বিভিন্ন সময় পর্যটকদের বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে কটেজে নিয়ে পৌঁছে দেয় এবং নির্দিষ্ট কমিশন প্রহণ করে। কটেজে প্রবেশের পর বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে দেয়া হয়। পর্যটকদের জিম্মি করে, ভয়ভীতি দেখিয়ে কিংবা ব্ল্যাকমেইল করে টাকা আদায় করা হয়। অভিযান চলাকালীন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায় যে কথিত শিউলি কটেজের ভেতরে কয়েকজন শিশু পর্যটককে আটকে রাখা হয়েছে। সাথে সাথে ট্যুরিস্ট পুলিশ সেই কটেজে অভিযান পরিচালনা করে ৪ জন পর্যটককে উদ্ধার করা হয়। উক্ত কটেজ তল্লাশি করে একটি ছুরি, রড ও প্লাস এবং অনৈতিক কাজের বিভিন্ন উপাদান উদ্ধার করা হয়। ভেতরের পরিবেশ দেখে মনে হয় এটি একটি টর্চার সেল। উদ্ধারকৃত ৪ জন হল মোঃ ইফাজ উদ্দিন ১৭, আব্দুল্লাহ আল ফাহিম ১৫ তারা কক্সবাজার সদরের দক্ষিণ ডিককুল এলাকার বাসিন্দা তারা বিচে ঘুরেফিরে রাতে থাকার জন্য কম খরচের হোটেল খুজছিল, এমন অবস্থায় একজন দালাল তাদের কম খরচে রুম দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে শিউলি কটেজে নিয়ে যায়। তারা কটেযে ঢোকার সাথেই সাথেই বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে দেয়া হয় এবং নানাভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে সব টাকা নিয়ে নেয়। একই ভাবে টেকনাফের পালংখালি থেকে কক্সবাজার বিচে বেড়াতে আসা পর্যটক দিল মোহাম্মদ ১৯ ও মোঃ ইমরান ১৯ কে রাস্তা থেকে দালাল ৫০০ টাকায় রুম দেবে বলে নিয়ে শিউলি কটেজে ঢুকিয়ে বাইরে থেকে তালা লাগিয়ে দেয় এবং তাদের কাছ থেকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তাদের কাছে থাকা ৩০০০ টাকা নিয়ে নেয়। তাদের ভাষ্যমতে সেখানে ৭/৮ জন লোক ছিল এবং ৩ টি মেয়ে ছিল। ট্যুরিস্ট পুলিশ সদস্যরা কটেজে প্রবেশের পর দেখতে পায় যে কটেজের পেছন দিক দিয়ে গোপন একটি পথ রয়েছে। সেই পথ দিয়ে কটেজের সবাই পালিয়ে যায়।
ভিকটিমদের উদ্ধার করে ট্যুরিস্ট পুলিশ কক্সবাজার রিজিয়নের অফিসে নিয়ে আসা হয়েছে। আসামীদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
আটকৃত দালালদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে, তাদের তথ্যের ভিত্তিতে মূল হোতাদের ধরার জন্য অভিযান অব্যাহত থাকবে। এ ব্যাপারে ট্যুরিস্ট পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ রেজাউল করিম জানান যে এ ঘটনাটি পর্যটনের জন্য খুবই দুঃখজনক, পর্যটনের সেবার আড়ালে এ ধরণের অপরাধ কোনভাবেই বরদাসত করা হবেনা। ট্যুরিস্ট পুলিশ একশন শুরু করেছে, সে যেই হোক না কেন অসাধু ব্যবসায়ীদের ধরা হবে এবং এ ধরনের অপরাধ নির্মূল করা হবে। পর্যটন নগরী কক্সবাজারের সম্মান রক্ষার্থে, পর্যটনের বিকাশে দীর্ঘদিনের এই জটিল সমস্যা সমাধানে সবাইকে ট্যুরিস্ট পুলিশের কাজে সহযোগিতা করার আহবান জানান। খুব শীঘ্রই এ ধরনের সকল কটেজে অভিযান পরিচালনা করা হবে এবং ট্যুরিস্টদের জন্য নিরাপদ পর্যটন নগরী উপহার দেয়া হবে।

পোষ্টটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো খবর পড়ুন
© কপিরাইটঃ- এন প্লাস টিভি (২০২০-২০২২)
ডিজাইন ও কারিগরি সহযোগিতায়: Jp Host BD